অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং কি ? Best in 2022

অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং কি ? অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিংকরে উপার্জন ।

অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং কি ? অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিংকরে উপার্জন । আজকে আমরা অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং সম্পর্কে সমস্ত বিষয়বস্তু নিয়ে আলোচনা করব । আপনারা যদি সম্পন্ন ব্লগ টি পড়েন তাহলে বুঝতে পারবেন অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং বলতে কি বুঝায় এবং অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং করে কি পরিমাণ অর্থ উপার্জন করা যায় । কিভাবে আপনারা অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং কি করবেন সে সম্পর্কে সম্পূর্ণ ধারণা দেওয়ার জন্য আমারে ব্লক টা তৈরি করার মূল উদ্দেশ্য ।

আমরা আপনাদের সাথে অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং এর খুঁটিনাটি বিষয় সম্পর্কে সম্পূর্ণ ভাবে আলোচনা করব এবং কিভাবে এটি করে আপনি অনলাইন থেকে উপার্জন করতে পারেন এবং কোন কোন ওয়েবসাইট রয়েছে অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং করার জন্য এবং কোন ওয়েবসাইট টি সবচেয়ে বেস্ট এখনকার দিনে সেটি নিয়েও আলোচনা করব ।

অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং হল অনলাইনের মধ্যে যে সকল ওয়েবসাইট গুলো রয়েছে তাদের মধ্য থেকে যে সকল ব্যবসায়ী ওয়েবসাইট রয়েছে বা পণ্য বিক্রি এর ওয়েবসাইট গুলো রয়েছে বা যেসব সার্ভিস প্রদান করে ওয়েবসাইটগুলো রয়েছে । সে গুলোকে আপনি মার্কেটিং করে আপনার লিংক এর দ্বারা বিক্রি করলে কিছু পারসেন্টেজ সেই পণ্যের এর উপরে আপনি পাবেন । তাহলে চলুন এখন অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং কাকে বলে এবং সম্পূর্ণভাবে বিস্তারিত আলোচনা করি । ।

অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং কি :-

আমরা প্রথমেই জেনে নিব অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং কি । অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং বলতে কি বুঝায় । কিভাবে অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং করে থাকে । কোন একটি ওয়েবসাইট পণ্য বিক্রয় বা সার্ভিস সেবা প্রদান করে থাকে যেসকল ওয়েবসাইটের বিক্রি বাড়ানোর জন্য ওয়েবসাইটগুলো অ্যাফিলিয়েট লিংক তৈরী করে রাখে । যারা অ্যাফিলিয়েট মার্কেটার রয়েছে তারা সেই সকল ওয়েবসাইট এর মধ্যে গিয়ে তাদের একটি প্রোফাইল তৈরি করে ।

এবং সেখানে যে সকল সার্ভিস বা পণ্য বিক্রির অ্যাফিলিয়েট লিংক রয়েছে সে গুলোকে কপি করে সেগুলি নিয়ে নিজেই মার্কেটিং করে সেই পণ্য এর উপরে । সে যদি সেই পণ্যটির বিক্রি করতে পারে তখন সেই পণ্যের উপরে কিন্তু কিছু পরিমাণে পার্সেন্টেজ (%) পেয়ে থাকে সেটা কিন্তু 2% থেকে 75 % শতাংশ (%) পর্যন্ত হয়ে থাকে । নির্দিষ্ট করা থাকে না কিছু কিছু পণ্য শতাংশ (%) কম থাকে এবং কিছু কিছু 15 শতাংশ (%) বেশি থাকে ।

অর্থাৎ আমরা বুঝতে পেরেছি অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং কি এখন কোন একটি ওয়েবসাইট তাদের সার্ভিস বা পণ্য বিক্রি করার জন্য একটি অ্যাফিলিয়েট লিংক তৈরী করে রাখে । তখন কিন্তু যারা অ্যাফিলিয়েট মার্কেটার রয়েছে তারা সেই লিঙ্কে মার্কেটিং করে সেই পণ্য বা সার্ভিস এর উপরে কিছু পারসেন্টেজ কমিশন পেয়ে থাকে এটাকে মূলত বলা হয় অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং ।

এই অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং আবার বিভিন্ন ভাবে করা যায় সেগুলো প্রকারভেদ বলা হলো :-

ফিজিক্যাল প্রোডাক্ট বিক্রয় :-

যে সকল পণ্য গুলো আমরা ক্রয় করে আমাদের বাসায় চলে আসে নিত্যদিনের ব্যবহারের জন্য সে গুলোকে বলা হয় মূলত ফিজিক্যাল প্রোডাক্ট । অর্থাৎ আমাদের দৈনন্দিন জীবনে যে সকল পণ্যগুলোর প্রয়োজন পড়ে সেগুলো কে আপনি আপনার যে সকল ভিজিটর বা ট্রাফিক রয়েছে তাদের মধ্যে মার্কেটিং করে থাকবেন । এবং এতে করে আপনি যদি মার্কেটিং করার পরে কোন পণ্য বিক্রি হয় সেই পণ্য বা সার্ভিস এর উপরে কিছু পারসেন্টেজ পেয়ে যাবেন ।

ডিজিটাল পণ্যও সেল :-

ডিজিটাল পণ্যের মধ্যে মূলত অনেক বেশি পার্সেন্ট পাওয়া যায় এ পণ্যগুলো হয়ে থাকে সার্ভিস প্রদানের মাধ্যমে । যেমন ধরুন কোন একটি ওয়েবসাইট তাদের ওয়েবসাইটের মধ্যে কোন কোর্স করায় বা কোন একটি বইয়ের ওয়েবসাইট রয়েছে সে ওয়েবসাইটে থেকে বই ক্রয় করা যায় ই-বুক গুলো শেখ সকল ওয়েবসাইট এর মধ্যে আপনি যদি অ্যাফিলিয়েট করে থাকেন তাহলে কিন্তু আপনি ভালো একটি পরিমাণের অ্যাফিলিয়েট পার্সেন্টেজ পাবেন ।

যেমন মনে করেন আপনি কোন একটি ওয়েবসাইটকে নিয়ে মার্কেটিং করতেছেন সে ওয়েবসাইট এর প্রোডাক্ট রয়েছে ডোমেইন-হোষ্টিং এস এস এল সার্টিফিকেট , অনলাইন রিসার্চ টুলস এ সকল পণ্য গুলো । নিয়ে যদি আপনি মার্কেটিং করে থাকেন তাহলে আপনি কিন্তু অনেক সহজেই অনেক ভালো পরিমাণে উপার্জন করতে পারবেন ।

ট্রাফিক নিয়ে আসা :-

এই কাজটা করা হয় মূলত আপনি কোন একটি কোম্পানির মাধ্যমে তাদের অ্যাপ্লিকেশন বা তাদের ওয়েবসাইটে ভিজিটর আনার মাধ্যমে । অর্থাৎ মনে করেন আপনাকে কোনো একটি কোম্পানি একটি কাজ দিল তাদের যে অ্যাপ্লিকেশনটি রয়েছে সে অ্যাপ্লিকেশনটি কে আপনি 500 মোবাইলের মধ্যে ইন্সটল করে দিবেন । বা তাদের ওয়েবসাইটের মধ্যে 500 জনকে সাইনআপ করে দিবেন । সেটার বিনিময় আপনার কিন্তু কিছু পরিমাণ এর অর্থ দেওয়া হবে । সেখান থেকে কিন্তু কোনো পণ্য ক্রয় করতে হবে না শুধুমাত্র সাইনআপ বা ক্লিক করলেই হবে ।

যে শর্ত টা জুড়ে দেবে সেটা সম্পন্ন করতে পারলেই কিন্তু আপনাকে আপনার কাঙ্খিত অর্থ দিয়ে দেওয়া হবে । এটি করা কিন্তু অনেক সহজ । এবং অনেক সহজেই আপনি অনেক দ্রুত এই কাজটি সম্পন্ন করতে পারবেন । তাই অবশ্যই মাথায় রাখবেন যে কাজই করেন না কেন আপনাকে পরিশ্রম করে করতে হবে এবং ভালো একটি ফিডব্যাক দিতে হবে আপনার ক্লাইন্ট কাকে । অবশ্যই আপনি নৈতিকতার সাথে আপনার বায়ারের কাজটি সম্পন্ন করবেন ।

অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং উপার্জন :-

অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং করলে কী পরিমাণ অর্থ উপার্জন করা যায় এটা বলা অনেক টাই মুশকিল । কারণ আপনার যদি ভালো একটি ইউটিউব চ্যানেল বা ভালো একটি ওয়েবসাইট থেকে থাকে তাহলে কিন্তু আপনি আনলিমিটেড উপার্জন করতে পারবেন । অর্থাৎ মনে করেন আপনি একটি ওয়েবসাইট তৈরি করেছেন ওয়েবসাইটের মধ্যে আপনি ভালো কাজ করে ট্রাফিক অনেক বেশি প্রতিনিয়ত আপনার ওয়েবসাইটের মধ্যে ভিজিটর আসে বা আপনার যেই ইউটিউব চ্যানেল রয়েছে সেই ইউটিউব চ্যানেলের মধ্যে প্রতিনিয়ত রিভিউয়ার্স আসে ।

আপনি আপনার ইউটিউব চ্যানেলের ডেসক্রিপশন এ যে অ্যাফিলিয়েট লিংক দিয়েছেন তার কথা ভিডিওর মধ্যে বলেছেন এবং আপনার ওয়েবসাইটের মধ্যে আপনি যেই অ্যাফিলিয়েট লিংক ব্যবহার করেছেন তার মধ্যে প্রতিনিয়ত ট্রাফিক আসতেছে অতএব আপনি কিন্তু একবার কাজ করে গেছেন এখন যত বেশি ট্রাফিক আসবে আপনি কাজ করেন বা না করেন আপনি থাকেন বানা থাকেন আপনাকে কিন্তু অর্থ উপার্জন হতেই থাকবে ।

তাই আমি উপরে বলেছি আপনি কি পরিমাণ এর অর্থ উপার্জন করবেন তা বলা মুশকিল নয় অসম্ভব । কারণ আপনার যদি ভালো ওয়েবসাইট বা ভাল ইউটিউব চ্যানেল থাকে তাহলে আপনি অবশ্যই আনলিমিটেড অর্থ উপার্জন করতে পারবেন । আপনার ভিডিও বা আপনার ওয়েবসাইটকে যত টাইম পর্যন্ত মানুষের দেখবে বা যতটা মানুষগুলো আপনার ওয়েবসাইটের মধ্যে আসবে তত সময় আপনার উপার্জন হতে থাকবে।  কারণ এটি হলো একটি উন্মুক্ত পেশা । আশা করি আপনারা বুঝতে পেরেছেন অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং করে কি পরিমাণের এর অর্থ উপার্জন করা যায় । এবং যদি ভালো করে রিচার্জ করে আপনি এফিলিয়েট মার্কেটিং করা শুরু করে দেন তাহলে কিন্তু অনেক দ্রুত এই আপনি অর্থ উপার্জনের পরিমাণ অনেকাংশেই বেড়ে যাবে ।

সঠিক মার্কেটপ্লেস খুঁজে বের করা :-

অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং করার জন্য এবং আপনার আয় বাড়ানোর জন্য অবশ্যই আপনাকে আপনাকে সর্বপ্রথম সঠিক মার্কেট নির্বাচন করতে । যে মার্কেটের মধ্যে সঠিক পরিমাণ এর অর্থ দেওয়া হয় এবং পার্সেন্টেজ বেশি দেয়া হয় এমন একটি মার্কেট নির্বাচন করতে হবে ।

আপনি যখন মার্কেটিং নির্বাচন করবেন আপনাকে অবশ্যই মার্কেটের যেসকল গতিবিধি রয়েছে সেই গতিবিধির ওপর নজর রাখতে হবে । এবং যে মার্কেট সিকিউরিটি রয়েছে সেই মার্কেট এর মার্কেটিং করতে হবে । এবং এমন মার্কেটের মার্কেটিং আপনাকে করতে হবে যে মার্কেটে এর মধ্যে অনেক ধরনের পণ্য রয়েছে । মার্কেটটি যাতে পপুলার হয় সেরকম একটি মার্কেট তৈরি করতে হবে । যেমন ধরেন ebay , amazon , এমন ধরনের মার্কেটগুলো আপনাকে নির্বাচন করতে হবে । যেগুলো থেকে ভালো পরিমাণের অর্থ উপার্জন করা যায় ।

সঠিক পণ্য খুঁজে বের করা :-

আপনি কিন্তু চাইলেই সকল পণ্য নিয়ে কাজ করতে পারবেন না আপনাকে অবশ্যই যে কোন একটা ক্যাটাগরী নিয়ে কাজ করতে হবে । এতে করে আপনার জন্য অনেক বেশি সুফল বয়ে আনবে । আপনার ওয়েবসাইটটি যে রিলেটেড তৈরি করবেন সে রিলেটেড প্রোডাক্ট নিয়ে আপনি কাজ করবেন ।
এবং আপনি এমন পণ্যগুলি সিলেক্ট করবেন যে পণ্যগুলোর মধ্যে অ্যাফিলিয়েট পার্সেন্টেজ আপনি বেশি পাবেন এবং এমন পণ্যগুলি সিলেক্ট করবেন আপনি যে বিক্রি বেশি হয় । অবশ্যই আপনাকে এই কাজগুলো করতে হবে যদি আপনি চান আপনার উপার্জন বেশি হয় ।

সোশ্যাল মিডিয়ার উপর গতিবিধি নজর রাখা :-

আপনি যে সকল পণ্য নিয়ে কাজ করবেন সে সকল পণ্য সম্পর্কে সোশ্যাল মিডিয়াতে কি পরিমানে রেসপন্স রয়েছে সেটি আপনাকে অবশ্যই নজরে রাখতে হবে । আপনি যেহেতু সম্পূর্ণ ডিজিটাল ভাবে আপনার পণ্যগুলো কে বিক্রি করবেন অতএব আপনাকে অবশ্যই মার্কেটের উপরে নজর রাখতে হবে এবং যেহেতু সোশ্যাল মিডিয়া গুলোর মধ্যে অনেক বেশি জনগণ রয়েছে সেই কারণে আপনাকে সোশ্যাল মিডিয়ার উপর নজরদারি রাখতে হবে ।

তাহলে সেই জায়গাতে অনেক বেশি ট্রাফিক থাকে এবং অনেক বেশি জনগণ থাকবে এমন সেখানে যে সকল গ্রুপ গুলো আছে সেই গ্রুপের মধ্যে আপনি দেখতে পারেন সেই পণ্যের চাহিদা কেমন রয়েছে । এবং আপনি একটি আইডিয়া নিতে পারবেন পণ্যটি নিলে আপনার জন্য কেমন এবং কতদিন পর্যন্ত সেই পণ্যের চাহিদা থাকবে । এ কারণে আপনাকে অবশ্যই সোশ্যাল মিডিয়ার উপরে নজর রাখতে হবে ।

আমাদের শেষ কথা :-

আমরা এই ব্লগের মধ্যে অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং সম্পর্কে সম্পূর্ণ একটি ধারণা দেওয়ার চেষ্টা করেছি আপনি যদি সম্পূর্ণ ব্লগ টি পড়ে থাকেন তাহলে অবশ্যই অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং সম্পর্কে অনেক কিছু জানতে পারবেন এবং কি কি কাজ করতে হবে এফিলিয়েট মার্কেটিং এর মধ্যে সে সম্পর্কে আইডিয়া পেয়ে যাবে । এই ব্লক সম্পর্কে আপনাদের মূল্যবান মতামত অবশ্যই প্রকাশ করবেন । আজকের জন্য এখানেই বিদায় অন্য কোনদিন অন্য কোন ব্লগ নিয়ে আপনার সাথে আবার দেখা হবে । ধন্যবাদ সবাইকে  ।

2 thoughts on “অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং কি ? Best in 2022

Leave a Reply

Your email address will not be published.